ব্লগ মানে কি ব্লগ থেকে কিভাবে অনলাইন টাকা আয় করবেন

ব্লগ মানে কি? ব্লগ থেকে কিভাবে অনলাইন টাকা আয় করবেন?

ব্লগ এই শব্দটি আপনি অনেকবার অনেকের কাছ থেকে শুনে থাকবেন! ব্লগের ব্যাপারে লাভজনক উপায় জেনে নেওয়াটা বর্তমানে যারা অনলাইনে ইনকাম করতে চাই তাদের জন্যই আজকের লেখা।

কারো জন্য ব্লগ এমন একটা টেকনোলজি যে আপনাকে অনলাইনে অনেক আয় করে দিতে পারবে।

এবং, অনেকরে জন্য ব্লগ হলো ইন্টারনেটে কিছু জানার মাধ্যম ( what is blog).

ব্লগ থেকে আয় করার কথা জানার আগে আপনার ব্লগের knowledge  পুরোপুরি হতে হবে।

মানে, ব্লগ বলতে কি বোঝায়, ব্লগ কিভাবে বানাতে হবে আর ব্লগ থেকে অনলাইন ইনকাম কিভবে করা যায়, এই জিনিস গুলির ওপরে আপনার পুরোপুরি জ্ঞান থাকতে হবে।

ব্লগ কি আর কিভাবে বানাবেন আর blogging  থেকে  online income  কিভাবে করবেন এর বিষয়ে বলার আগে আমি একটা কথা আপনাদের বলতে চাই

আজ Bangladesh, US, China  আরো অনেক জায়গায় লোকেরা ব্লগিং কে নিজের career হিসেবে নিয়েছেন।

আর এটা সত্তি যে ব্লগিং দ্বারা তারা অনলাইনে অনেক টাকা আর্নিং করেছন।

টাকা ইনকাম করার ওপরেও তারা নিজের ব্লগিং এর  office  ও চালাচ্ছেন।

যদি আমি আমার নিজের কথা বলি , আমি নিজেই আমার ব্লগ থেকে মাসে ১০০ থেকে ২০০ ডলার পার্টটাইম আয় করি। আর আপনিও যদি ব্লগে লিখে পার্ট-টাইম বা ফুল-টাইম টাকা ইনকমি করতে চান, তাহলে আপনাকে দুটো জিনিসের প্রতি খেয়াল থাকতে হবে।

১. ব্লগ কি আর কিভাবে বানাবেন (  A to Z knowledge),  আর

২. নিজের ব্লগকে business  হিসেবে নিয়ে  handwork  করা।

তাছাড়া, আপনি আপনার ব্লগকে সফল করার জন্য কতটুকু পরিশ্রম করবেন সেটা আপনার নিজের ওপও নির্ভর করবে।

Finally,  যদি আপনি ভালোকরে নিজের ব্লগটি বানিয়ে পরিশ্রম (hard work)  করেন, তাহলে আপনি ব্লগিং থেকে এতো অনলাইন ইনকাম করতে পারবেন যে আপনার অন্য কোনো  job  বা  business  করার প্রয়োজন হবেনা, ইনশাআল্লাহ্ । এটাই আপনার একটা ফুল টাইম  business  হয়ে উঠবে।

যেমন আমি নতুন করে শুরু করছি।

ব্লগ মানে কি বা ব্লগ কাকে বলে?

সোজা আর সহজ ভাষাতে বললে, ব্লগ আপনার একটা ডায়েরির মতন।

এমন একটা ডায়েরি যেখানে আপনি আপনার মন মতো যা খুশি লিখতে পারবেন।

আপনি,  stories, tutorials, sms, কবিতা, পত্রিকা, এবং আর্টিকেল বা যেকোন জিনিসের বিষয়ে লিখতে পারনে।

কেবল, এতটুকু খেয়াল রাখবেন যে আপনি যা লিখেছেন সেটা যাতে সঠিক আর পুরো পরিষ্কার ভাবে লেখা হয়।

এর কারন হলো, আপনার পার্সোনাল ডায়েরি কেউ না দেখতে পারে, কিন্তু ডায়েরির মতোই এই ব্লগ যেখানে আপনি অনেক কিছু লিখবেন সেটা অনেকেই আজ না হয় কাল পড়বে।

আর আপনার লিখা আর্টিকেল যদি কারো ভালই না লাগে , তাহলে আপনি ব্লগিং এ কখনো  success  হতে পারবেন না।

পার্সোনাল ডায়েরির মতো এই ব্লগ আপনি হাতে কলমে লিখতে পারবেন না।

ব্লগ লেখার জন্য আপনার কিছু জিনিসের প্রয়োজন হবে।

এই দরকারি জিনিস গুলো হল একটি –  Computer বা Laptop, Internet Connection, সাধারণ কম্পিউটার  knowledge এবং আপনি যে বিষয়ে আর্টিকেল লিখবেন তার জন্য দরকার সঠিক জ্ঞান কিংবা knowledge.

এগুলো যদি আপনার কাছে আছে তাহলে ইন্টারনেটে এমন কিছু প্লাটফর্ম বা ওয়েবসাইট আছে যারা আপনাকে একটি ব্লগ তৈরী করতে সহায়তা দেবেন।

এখন সবথেকে বড় প্রশ্ন আপনার বানানো ব্লগে
ভিজিটর আসবে কিভাবে?আপনি এটা ভাবতেছেন,তাইনা?
তো এর খাঁটি উত্তর হলো গুগুল সার্চ, ইয়াহু সার্চ, সোশ্যাল মিডিয়া এবং অন্য ব্লগ থেকে।

আমি আপনাকে পরে ভাল করে বুঝাবো যে googe search এবং social media থেকে হাজার হাজার ভিজিটর বা ট্রাফিক কিভাবে আনতে হয়।

তবে এখন ভাল করে জেনে রাখুন যে ব্লগে ভাল করে টাকা আয় করতে হলে আপনাকে হাজার হাজার ভিজিটর দরকার আছে।

আর আপনি ব্লগে ফ্রি ট্রাফিক ও ভিজিটরস কেবল google এবং yahoo ও social media থেকে পাবেন।
তো আশা করি ব্লগ কি এবং কাকে বলে এইটা আমি আপনাকে সহজভাবে বুঝাতে পারলাম।
তো, চলেন এবার আমরা জেনে নিই একটি ফ্রি ব্লগ বানাব সেটা জেনে নিই

একটি ফ্রি ব্লগ কিভাবে বানানো যাবে?
দেখেন, ব্লগ বানানোর অনেক উপায় আছে, এই উপায়গুলোর মধ্যে mainly 2টা উপায় বেশি করে ব্যাবহার করা হয়।

একটা হলো self hosted wordpress এবং অন্যটি হলো free blogger blog.

সেল্ফ হোস্টেড ওয়ার্ডপ্রেস ব্লগে আপনার অল্প টাকা খরচ হবে।আর তাই এই বিষয়ে আমি অন্য কোন আর্টিকেলে বলব।

এখন রইল ফ্রি ব্লগার ব্লগ। যেখানে আপনার কোন টাকা খরচ হচ্ছে না।আপনি ফ্রিতে ব্লগ বানিয়ে নিতে পারবেন।

“ব্লগার ফ্রি ব্লগ” বানানোর জন্য আপনার প্রয়োজন একটি গুগল বা জিমেইল একাউন্ট।কারন, blogger.com যেখানে গিয়ে আপনি ফ্রি ব্লগ বানাবেন সেটা google এর একটি Product বা service.

আর তাই, bloggr.com এ ব্লগ বানানোর জন্য আপনার প্রথমে দরকার হল একটা জিমেইল ID এবং Password এর।আশা করি আপনার জিমেইল একাউন্ট আছেই। আর না থাকলে আপনি gmail.com এ গিয়ে নিজের গুগল একাউন্ট বানাতে পারবেন।

এখন blogger.com ওয়েবসাইট টিতে যাওয়ার পর আপনি প্রথম পেইজে একটি লিংক দেখবেন
“creat a blog” বলে। তারপর আপনি লিংকটিতে ক্লিক করুন।তারপর নিজের জিমেইল Id ও Password দিয়ে লগ ইন করুন।

লগইন করার পর আপনি setup page দেখতে পাবেন।

এখন আপনি setup page থেকে ” creat google plus account ” এ ক্লিক করুন।

তারপর ” continue to blogger ” লিংক এ ক্লিক করুন।
এখন আপনি নিজের ব্লগার Dashboard দেখতে পাবেন।
ব্লগার dashboard এ লগইন হওয়ার পর creat a blog লিংক দেখবেন। যেখানে ক্লিক করে আপনি আপনার ব্লগ বানাতে পারবেন।

আশাকরি ব্লগার ব্লগ কিভাবে বানানো যায় বুঝতে পারছেন।এখন ব্লগ থেকে কিভাবে টাকা আয় করবেন সেটা জেনে নিন।

কিভাবে ব্লগ থেকে টাকা আয় করা যায়?(3 best ways)

ব্লগ থেকে আয় করার অনেক উপায় আছে।আমার ব্লগিং এর অভিজ্ঞাতয়ায় যেটা মনে হয়েছে

ব্লগ থেকে আর্নিং করার এই তিনটি উপায় হলোঃ google adsense, affiliates marketing এবং product promotion. আজ এই তিনটি উপায়ের মধ্যে লোকেরা হাজার হাজার টাকা ইনকাম করছেন।

এখন আমরা এই তিনটি উপায়ের মধ্যে ডিটেইলস জানবো।

. গুগল এডসেন্স দ্বারা ব্লগ থেকে টাকা আয়:

গুগল এডসেন্স একটি ব্লগ বা ওয়েবসাইট থেকে টাকা ইনকামের একটা বিশ্বস্ত মাধ্যমে।

এডসেন্স গুগল এর এমন একটি সার্ভিস যা আপনি আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে আপনাকে টাকা আয় করার সুযোগ দেয়।
বিজ্ঞাপনগুলো অনেক রকমের হতে পারে যেমন: Image,Ads, video ads এবং লিংক Ads.

আপনার ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত বিজ্ঞাপন গুলিতে আপনার ওয়েবসাইটে আসা ভিজিটর যখন ক্লিক করে তখন আপনার Adsense account এ টাকা ইনকাম হয়।

এই ছোট ছোট ads এ ক্লিক করে মাস শেষে আপনি হাজার হাজর টাকা পেয়ে থাকবেন।

আর আপনি যখন আপনার ওয়েবসাইটে গুগল বিজ্ঞাপন প্রদর্শন করে ১০০ ডলার পেয়ে যাবেন তখনি আপনি আপনার ব্যাংক একাউন্টে টাকা পেয়ে যাবেন।

Google Adsense থেকে বেশি আয় করতে হলে আপনি আপনার ওয়েবসাইটে হাজার হাজার ভিজিটর থাকতে হবে।

কারন যখন ব্লগে ট্রাফিক বা ভিজিটর আসবে তখন তারা google adsense ads দেখবে এবং ক্লিক করবে। তাই, আপনি আপনার নিজের ব্লগে কিভাবে ট্রাফিক বা ভিজিটর বাড়াবেন সেটা ভাবুন।

তারপর ভিজিটর আসার পর আপনি এডসেন্স এর বিজ্ঞাপন দেখিয়ে টাকা আয় করতে পারবেন।

. Affiliate মার্কেটিং দ্বারা ইনকাম:

2021 সালে Google Adsense এর পরে এফিলিয়েট মার্কেটিং” ব্লগ থেকে অনলাইন টাকা ইনকামের সহজ পথ ও খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

এফিলিয়েট মার্কেটিং অনেক সোজা জিনিস।

এখানে আপনার ইনকামটা Commission হিসেবে দেওয়া হয়।

তো, চলুন আগে জেনে নিই এফিলিয়াট মার্কেটিং কি্‌?

Affiliate Marketing সোজাসুজি একটা Commission ইনকাম করার মাধ্যম।

এখানে সেটা যে কোন জিনিস অনলাইনে কেনা যায় সেটা নিজের ব্লগে প্রমোট করে ইনকাম করতে পারেন।

বিভিন্ন অনলাইন স্টোর যেমন, Amazoe.in, Flipkart.com আরো অনেক যাদের products যেমন টিভি, ল্যাপটপ,মোবাইল আদিব নিজের এডবারটিসিমেন্ট নিজের ব্লগে লাগনো হয়।

এই এডবারটিসিমেন্টগুলো এফিলিয়াট লিংকের দ্বারা ব্লগে লাগানো হয় যেটা আপনাকে অনলাইন স্টোরগুলোতে এফিলিয়াট একাউন্ট বানানোর পর দেওয়া হবে।

এখন আপনার দেওয়া এফিলিয়াট লিংকে ঢুকে কেউ যদি প্রোডাক্ট বা এডবারটিসিমেন্ট থেকে কেনকাটা করে তাহলে আপনি আনলিমিটেড Commission পাবেন।

এভাবেই আপনি যে কোন প্রোডক্ট এর এফিলিয়াট লিংক আপনার ব্লগে বা ওয়েবসাইটে লাগিয়ে প্রোডাক্ট এর কমিশন থেকে ইনকাম করতে পারছেন।

. Local product promote করে টাকা আয় করুন

Google Adsense আর Affiliate marketing এর পর ব্লগ লিখে টাকা আয় করার আরেকটি উপায় আছে, আর সেটা হলো লোকাল প্রোডাক্ট প্রমোশন

যখন আপনার ব্লগে অনেক ট্রাফিক ও ভিজিটর আসা শুরু হয়ে যাবে তখন আপনার নিজের লোকাল জায়গার যে কোন জিনিসের বা দোকানের এডভারটিসিমেন্ট নিজের ব্লগে করতে পারেন।

Advertisement বা Product Promotion এর জন্য আপনি আশেপাশে দোকান মালিক বা স্টোরের manager দের সাথে কথা বলে দেখতে পারেন।

আপনার ব্লগে করা দোকান বা প্রোডাক্ট এর করা এডভারটিসিমেন্টের বিনিময়ে আপনি কিছু টাকা ফিস হিসেবে নিতে পারেন।

আজকাল লোকাল দোকান থেকে শুরু করে সবাই অনলাইন Advertisement কে অনেকটাই লাভজন হিসেবে ভাবে।

তাই আপনার ব্লগে যদি অনেক ট্রাফিক বা ভিজিটর আছে তাহলে আপনি এই সুযোগে আপনার ব্লগ থেকে প্রচুর টাকা আয় করে নিতে পারবেন।

অবশেষে,

আজ এই ব্লগ আর্টিকেলে আমি আপনাদের ব্লগ মানে কি এবং ফ্রি ব্লগ কিভাবে বানতে পারবেন সেটা বললাম।

তারপর, নিজের ব্লগ থেকে কিভাবে অনলাইনে ইনকাম করবেন তার ৩ টি সুলেশনের কথা বললাম।

তাই, আমার এই ব্লগের আর্টিকলটি যদি আপনাদের ভাল লেগেছে তাহলে আপনাদের Family member দের এবং Friends দের সাথে শেয়ার করবেন।

আর,  আপনারা যদি ব্লগ থেকে ভাল আয় করতে চান তাহলে আপনার ব্লগে ভাল ভাল আর্টিকেল লিখুন এবং ভিজিটর আনুন।

টাকা কামানোর কথা আগে ভাবলে আপনি সহজে সাকসেস হতে পারবেন না।ব্লগ বানানোর জন্য পরিশ্রম করতে হবে। আপনাকে ধন্যবাদ।

 

Leave a Comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *

error: Content is protected !!